রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১

‘পুনর্বাসন : একটি সাংস্কৃতিক রাষ্ট্রীয় কার্যক্রম’ সরকার আশরাফের প্রথম গল্পগ্রন্থ। এতে গল্প আছে ছ’টি। তিনি  লিটল ম্যাগাজিনেরই গল্পকার।খুব বেশি গল্প তিনি লেখেননি তবে তার কথাটিকে তার মতো করেই বলার প্রবণতা প্রবল। তার গল্প যেমন একটি গল্প থাকে তেমনি থাকে ম্যাজেসটি পৌঁছে দেয়ার মানসিক তাগিদ। তার গল্পের বড়ো দিক হচ্ছে সমাজবাস্তবতা।

প্রথম গল্প পুনর্বাসন : একটি রাষ্ট্রীয় সাংস্কৃতিক কার্যক্রম গল্পটি বেশ্যাদের উচ্ছেদ, পুনর্বাসের রাষ্ট্রীয় তাগিদ, একধরনের হেয়ালীপনার এক চিত্র আছে এখানে। গল্পটির বহুমাত্রিকতার বিষয়টিও ভালোই; কিন্তু অত বেশি বিষয় এতে যুক্ত হয়েছে যাতে  ডিটেইল আরও বিস্তৃতি দাবি করে। ‘পুনর্বাসন : একটি রাষ্ট্রীয় সাংস্কৃতিক কার্যক্রম’ এটি তো নারায়ণগঞ্জের টানবাজার নিয়েই লেখা? এ ব্যাপারটি আরও পরিষ্কার হতে পার। প্রস্টিটিউটদের সাক্ষাৎকার, কথাবার্তা, লাইফস্টাইল তত জীবনঘনিষ্ঠ দাবি করে। শেষ দিকের মিটিংএ ওদের ন্যাংটা হয়ে সমন্বিত প্রতিবাদটি চমৎকার। তবে এধরেনর গল্পে জীবনবিন্যাসের বাস্তবতা প্রকাশের যে নিষ্ঠা থাকাটা জরুরি তা নেই। প্রথমদিকের উচ্ছেদের ভয়াবহতার সাথে পরবর্তী ইন্টারগেশন বা পুনর্বাসন প্রক্রিয়া বানানো মনে হয়েছে। জীবনের নিষ্ঠুরতা আসেনি সেভাবে। ‘ডিসিপ্লিন’ গল্পটিতে কথিত আমলাতন্ত্রের অহেতুক দীর্ঘসূত্রতার বিষয়টা আনার একটা প্রবণতা আছে। কিন্তু বাংলাদেশে এই আইনকে বিশেষ করে সরকারি আইনকে বাই পাস করার হাজারটা পথ আছে। এসব কুদরত বা এবারক ভাবতে পারত। চেয়ারম্যান, মেম্বার, দালাল-ফড়িয়া এসব নিয়ে গ্রামের শাসন চলছে ভিন্নভাবে। একজনেরই তিনবিঘা জায়গায় কৃষি বিভগের এক্সপেরিমেন্ট? এমনটি কি হয়? ‘অবরোধ : একটি রাজনৈতিক সংস্কৃতি’ পড়তে পড়তে মুগ্ধতায় এক্কেবারে আবিষ্ট হয়ে যাওয়ার মতো অনুষঙ্গ আছে। আবু হোসেনের চলার পথটি, স্টোরসমূহ, রাস্তা-ঘাট এমনকি নগরটি যদি কখনো ইতিহাসের গর্ভে হারিয়ে যায়; গল্পটি পড়ে-পড়ে এসব বের করা  সম্ভব! বার-বার পড়ার মতো গল্প। গল্পটির শেষদিকের সিম্বলও সুন্দর। গল্পের স্বতস্ফ‚র্ততা বোধ হয় অনেক বড়ো ব্যাপার – যা এ গল্পে দারুণভাবে আছে। ‘একজন মজিদ ও তার দাম্পত্যজীবন’ নামের গল্পে গ্রিক মিথোলজির কথা বিশেষ করে সফোক্লিসের নিয়তিবাদের কথা মনে এলেও তা স্থায়ী হয় না; কিংবা ঈস্কিলাসের দেবত্ববাদ নেই এখানে। কিন্তু গ্রিক মিথোলজির অপর বিখ্যাত নাট্যকার ইউরিপিডাসের মানবিক মূল্যবোধে যেন সিক্ত হয়েছে চরিত্রসমূহে। তবে এ গল্পে আছে স্রেফ একটা প্রাকৃতিক দুর্ঘটনা। একসময় এও বোঝা যায় মজিদের দাম্পত্য ধরনের রিলেশনটা তার সহোদরার সাথেই। এ গল্পে যাপিত সংস্কারকেই বড়ো করে দেখানো হয়েছে। শিল্পের ঘোর তেমন নেই এখানে। রোকেয়ার যৌনজীবনের কথা আছে আবার বিশুদ্ধতার একটা ধারণাও যেন থাকেই। এতে একটা গল্পের বাধাহীন চলার পথটা ব্যাহত হলো। ‘প্রকৃতি-বিষয়ক জটিলতা’র শিরোনামটি যথার্থ মনে হয় না। বদগন্ধ আর গু-গন্ধের বিষয়টি যত চমৎকারভাবে আছে তাতে নামটিতে অত জাদুময়তা নেই। তবে  শুক্কুর আলীর গন্ধ পাওয়ার সংকেতটি যেমন চমৎকার, তেমনি আফতাব মৌলানার স্বাধীনতা বিরোধীতার বিষয়গুলো বেশ তাৎপর্যপূর্ণ। কিছু কিছু শব্দ এবং বর্ণনায় ধর্মীয় সমাজবাস্তবতার প্রতিচ্ছবি আরও স্পষ্টভাবে আসতে পারত। যেমন নামাজ পড়ার বিষয়, ধর্মসভা, মৌলানার বাণী, নামাজ থেকে পেসাবের ভান ধরে উঠা আসা, আরবদ্যাশ – এসব বিষয়গুলো হয়ত-বা অন্যভাবে লিখলে জীবনঘনিষ্ঠতা আরও স্পষ্ট হতো।  ‘সহজ সমীকরণ’ একঅর্থে নারীবাদ বা মুক্তিযুদ্ধের পরবর্তী জীবনে অপরাজনীতির উত্থানের গল্প বলা যায়। সাপের সংকেতটি ভালোই এসেছে গল্পটিতে।

শফিকুল ইসলামের প্রচ্ছদটি গল্পপাঠের ভিতর থেকেই বেরিয়ে এসেছে যেন। প্রকৃতি-বিষয়ক জটিলতা’র মরজিনা, পুনর্বাসন : একটি রাষ্ট্রীয় সাংস্কৃতিক কার্যক্রম’এর রেহেনা কিংবা সরল সমীকরণ’এর ফরিদা বানুর যাপিতজীবনের হাহাকারময় প্রতিচ্ছবি যেন এটি। হায়েনার অনবরত কামড়ে নীলাভ হয়ে যাচ্ছে ধ্যান-মগ্ন নারী, চারপাশ ঘিরে রেখেছে অপশক্তি।

সরকার আশরাফের উপমা-উৎপ্রেক্ষা বেশ জীবন্ত এবং স্মার্ট। গ্রন্থটিতে বেশ কিছু মুদ্রণপ্রমাদ যেমন আছে; তেমনি এও বোঝা যায় না, বইটির বানান-রীতির ধরন কী। তবে নিসর্গ নামের লিটল ম্যাগাজিন থেকে এমন একটি জীবনঘনিষ্ঠ গ্রন্থ উপহার দেয়াতে এর প্রকাশক ধন্যবাদ পাওয়ারই যোগ্যতা রাখে। 

‘পুনর্বাসন : একটি সাংস্কৃতিক রাষ্ট্রীয় কার্যক্রম’
সরকার আশরাফ
প্রকাশকাল : একুশে বইমেলা ২০০৩
প্রকাশক : নিসর্গ
প্রচ্ছদ : শফিকুল ইসলাম
পৃষ্ঠাসংখ্যা : ৮৩, মূল্য : ৬০ টাকা

মন্তব্য, এখানে...
Share.

জন্ম কিশোরগঞ্জ জেলার বাজিতপুর উপজেলার জ্ঞানপুর গ্রামে, মামাবাড়িতে ১৯৬৩ সালে। সংস্কৃতি ও রাজনীতিতে উজ্জীবিত বাজিতপুর এবং নাটকপাগল গ্রাম সরিষাপুরে জন্মগ্রহণের সুবাদে ছোটবেলাতেই সাংস্কৃতিক জীবনের হাতেখড়ি হয়। স্কুল-কলেজের ওয়াল ম্যাগাজিনে লেখালেখির মাধ্যমে সাহিত্যচর্চার প্রাথমিক পর্যায় শুরু হয়। তার ধারাবাহিকতা ছিল মেডিকেল কলেজেও। ২য় বর্ষে পড়াকালিন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের সাহিত্য বিভাগ থেকে স্বরচিত গল্পে ৩য় স্থান অধিকার করেন। এটিই খুব সম্ভবত কোন সাহিত্য রচনার জন্য প্রথম স্বীকৃতি লাভ। প্রথম গল্প প্রকাশ হয় ১৯৯৮ সালে মুক্তকন্ঠ-এ। প্রকাশিত গল্পের নাম ‘জলে ভাসে দ্রৌপদী। পুস্তক আকারে প্রকাশিত হয়েছে ৫টি গল্পগ্রন্থ, ৪টি উপন্যাস, ৪টি গদ্য/প্রবন্ধ গ্রন্থ এবং ১টি সংকলিত সাক্ষাৎকার। তাঁর প্রকাশিত বই: মৃতের কিংবা রক্তের জগতে আপনাকে স্বাগতম (গল্পগ্রন্থ, ফেব্রুয়ারি ২০০৫, জাগৃতি প্রকাশনী)। পদ্মাপাড়ের দ্রৌপদী (উপন্যাস, ফেব্রুয়ারি ২০০৬, মাওলা ব্রাদার্স)। স্বপ্নবাজি (গল্পগ্রন্থ, ফেব্রুয়ারি ২০০৭, ইত্যাদি গ্রন্থ প্রকাশ)। কতিপয় নিম্নবর্গীয় গল্প (গল্পগ্রন্থ, ফেব্রæয়ারি ২০১১, শুদ্ধস্বর)। উপন্যাসের বিনির্মাণ, উপন্যাসের জাদু (গদ্য/প্রবন্ধ, ফেব্রুয়ারি ২০১১, জোনাকী)। যখন তারা যুদ্ধে (উপন্যাস, ফেব্রুয়ারি ২০১৩, জোনাকী)। গল্পের গল্প (গদ্য/প্রবন্ধ, একুশে বইমেলা ২০১৩, জোনাকী)। কথাশিল্পের জল-হাওয়া (গদ্য/প্রবন্ধ, ফেব্রুয়ারি ২০১৩, শুদ্ধস্বর)। ভালোবাসা সনে আলাদা সত্য রচিত হয় (গল্পগ্রন্থ, ফেব্রুয়ারি ২০১৪, জোনাকী)। দেশবাড়ি: শাহবাগ (উপন্যাস, ফেব্রুয়ারি ২০১৪, শুদ্ধস্বর)। কথা’র কথা (সংকলিত সাক্ষাৎকার, ফেব্রুয়ারি ২০১৪, আগামী)। জয়বাংলা ও অন্যান্য গল্প (গল্পগ্রন্থ, ফেব্রুয়ারি ২০১৫, জোনাকী)। কমলনামা (গদ্য/প্রবন্ধ, ফেব্রুয়ারি ২০১৫, বেঙ্গল)। হৃদমাজার (উপন্যাস, ডিসেম্বর ২০১৫, অনুপ্রাণন প্রকাশন), খুন বর্ণের ওম (উপন্যাস, ফেব্রæয়ারি ২০১৮, ঘোড়াউত্রা প্রকাশন)। সম্পাদিত লিটল ম্যাগাজিন ‘কথা’ প্রকাশিত সংখ্যা ৯টি (২০০৪-২০১৪)। ২০১১ সালে ‘কথা’ লিটল ম্যাগাজিন ‘শ্রেষ্ঠ লিটল ম্যাগাজিন প্রাঙ্গণ’ পুরস্কারে পুরস্কৃত হয়। ২০১৫ সালে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক একুশে পদকে ভূষিত হন তিনি (মরণোত্তর)।

Leave A Reply