Friday, 20 May, 2022
Previous
Next
Previous
Next
Previous
Next

মোবাইলের পর্দায় অনেকক্ষণ চোখ রাখলে এক সময় দুচোখ ভরে উঠে আলোয়। চোখ উপচে পড়ে স্মার্টফোনের নীল আলোকরশ্মি। রেটিনার চেতনায় ক্লান্তি এসে ছন্দের পতন ঘটায়। চোখ বুজলে চোখের বাহিরের দুকোণ থেকে দুটি রেখা আড়াআড়িভাবে নাকের নিচে, ঠোঁটের ওপরের ভাঁজে এসে এক কোণ তৈরি করে। তখন মনে হয় দুটি রেখা বেয়ে একের পর এক আলোর ফোঁটা মার্বেল গড়িয়ে গড়িয়ে আসে- কোণে এসে হারিয়ে যায়। মনে হয় পাহাড়ের চূঁড়া থেকে নেচে নেচে গড়িয়ে পড়ে পাথরের অসংখ্য নুড়ি- নুড়ির ঘর্ষণে ফুটে উঠে আগুনের ফুল- পাথরের নুড়ি নয় নেচে নেচে গড়িয়ে পড়ে অসংখ্য আগুনফুল। সেদিনের পর থেকে চোখ বুজলে আলোর মার্বেল নয়, পাথরের নুড়ি নয়, আগুনের ফুল নয় ভেসে উঠে চোখের পর্দায় চর কাছিমনগরের নগর অধিপতি মুললুক চাঁদ ভূঁইয়া চৌধুরী। ভেসে উঠে অন্ধকারে দৃশ্য হয়ে-…

ডিরেক্টরি আসছে

মোবাইলের পর্দায় অনেকক্ষণ চোখ রাখলে এক সময় দুচোখ ভরে উঠে আলোয়। চোখ উপচে পড়ে স্মার্টফোনের নীল আলোকরশ্মি। রেটিনার চেতনায় ক্লান্তি এসে ছন্দের পতন ঘটায়। চোখ…

গদ্যধারা

সবপোস্ট

জানলা খোলা মানেই লম্পট জীবনশৈলী এমন নয়, খোলা আকাশে অবারিত যাতায়াত। এই আদান-প্রদান মানুষ-প্রাণী-উদ্ভিদ চরাচর এবং নক্ষত্রলোকে। এই সুবিশাল ব্রহ্মে কবিতা এক অত্যাশ্চর্য লাবণ্য-প্রতিমা। দশভুজার…

ডিরেক্টরি

জানলা খোলা মানেই লম্পট জীবনশৈলী এমন নয়, খোলা আকাশে অবারিত যাতায়াত। এই আদান-প্রদান মানুষ-প্রাণী-উদ্ভিদ চরাচর এবং নক্ষত্রলোকে। এই সুবিশাল ব্রহ্মে কবিতা এক অত্যাশ্চর্য লাবণ্য-প্রতিমা। দশভুজার দশহাতে রাবণের দশমাথাযুক্ত জাগ্রত এক আলোর দ্যুতিময়তা।  সময় প্রেক্ষাপট এবং শিল্পসংস্কৃতি বদলের সাথে সাথে কবিতার বাঁক বদলে যাচ্ছে। আমরা জানি পদার্থের সৃষ্টি ও বিনাশ নেই, প্রতি নিয়ত রূপান্তর ঘটছে। সমস্ত প্রাণ ও আপাতদৃষ্টিতে যা প্রাণহীন বা জড় বলে মনে হয়, তা সবই এক রূপ থেকে অন্যরূপে বদলে যাচ্ছে। কিন্তু অনেকেই ভাববেন এই ‘অক্ষর’ কাগজের উপর কালি কিংবা ডিজিটাল স্ক্রিনে আঙুল চেপে ফুটিয়ে তোলা দৃশ্যের পরম্পরা – এগুলো কী করে জীবন্ত বা জড়পদার্থ হতে পারে। এক বা একাধিক অক্ষর মিলিত হয়ে শব্দের উৎপত্তি, এবং তাকে উচ্চারণে প্রাণের প্রতিষ্ঠা, এই প্রাণ ক্ষণিকের,…

এক্সিবিশন

Previous
Next

অণুগল্প ও অণুগল্প বিষয়ক

সবপোস্ট

যখন একটি অণুগল্প  পাঠ করি , তখন এমন এক উচ্চতায় নিবিষ্ট করি আমার মন আর মগজ; প্রকৃতপক্ষে অই রকম হয়েই যায়;—আমার ভেতরে একধরণের অপারশূন্যতার সৃষ্টি হয়; বলা ভাল: আমি আসলে জাগতিক ভর/ বলের মধ্যে থাকি না। থাকা সম্ভব হয় না। আমি আর আমার আশপাশ কর্মহীন হয়ে পড়ে। গল্পপাঠে মনোযোগ দেয়ার সাথে সাথে আমার অন্যান্য ইন্দ্রিয়ের কার্যক্রম থেমে যেতে যেতে স্থির হয়ে যায়। উল্লসিত হয়ে হা হা করতে থাকে ভেতরের কেউ। আর উল্লেখিত এই ভাবাবস্থা না হলে বা না ঘটালে আমার অণুগল্পপাঠ অসম্পূর্ণ থেকে যাবে, যায়। আমার চিন্তাসূত্র একটি সূত্রে গুটিয়ে …

অণুগল্প ও অণুগল্প বিষয়ক

সবপোস্ট

ধারাবাহিক

বাঙলার মূলব্যাপারটা কিন্তু আশ্চর্য লাগে। দুই বাঙলা ভাষাভাষী অঞ্চল দুইরকমভাবে বিকাশ লাভ করে, পিছনে পড়ে,…

নাটক

For deshlai.com